রাত ১১:২৫ | সোমবার | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

উত্তরা ট্রাফিক বিভাগের উদ্যোগে শিশুদের  হেলমেট বিতরণ

মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক সুমনঃ  রাজধানীর উত্তরা ১১ নাম্বার চৌরাস্তা এলাকায়  মোটরসাইকেলে আরোহী শিশুদের মধ্যে হেলমেট বিতরণ করেন উত্তরা ট্রাফিক বিভাগ।
সোমবার সকালে সাড়ে ১১ টার দিকে উত্তরার ১১ নং সেক্টর সংলগ্ন জমজম টাওয়ার মার্কেটের সামনে শিশুদের হেলমেট, ফুল ও চকলেট বিতরণ করা হয়।
ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জুলফিকার আলী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
তিনি বলেন, ‘উত্তরা ট্রাফিক জোনের পক্ষ থেকে একটি ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা এটি। আমরা যারা রাস্তায় কাজ করি বাস্তবতাটা হচ্ছে আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ করতে গিয়ে দেখছি শিশুদের বিষয়টা উপেক্ষিতই রয়ে যাচ্ছে। যারা বাইক ব্যবহার করেন তারা অনেকেই শিশুদের জন্য হেটমেট ব্যবহার করেন না।’
জুলফিকার আলী বলেন, ‘অভিভাবকদের সচেতন করতে আমরা এটি একটি মেসেজ দিচ্ছি। একভাবে আমরা তাদের সেফটি ও দিচ্ছি। টোটাল ১৩টি পয়েন্টে চেক পোস্ট করা হচ্ছে। মোটরযান আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না।’
পরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বাইকারদের ব্যাপারে নিজের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
বাইকারদের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা বলে, মামলা দিবেন, এই দেখেন মামলা খাইছি। লজ্জা দেয়ার জন্য মামলা দেয়া হয়। কেনো সচেতন হবে না।
আবার হেলমেটবিহীন বাইকারদের ধরলেই বলে, এই যে এখানেই যাবো। হেলমেটের কি দরকার?
জুলফিকার আলী বলেন, ‘২শ টাকার মামলা অনেকেই পাত্তা দেয় না। তো সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে প্রথমে। যে দুই লাখ টাকা দিয়ে বাইক কিনতে পারে তারা হেলমেট কিনতে পারবে না? এটা কেমন কথা।
ট্রাফিক বিভাগের এই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্ঘটনা দেখেছি। তাই এর বাস্তবতাটা আমরা বুঝি। অফিসারদের নিকট থেকে টাকা নিয়ে বাঁচ্চাদের জন্য হেলমেট কিনেছি, ফুল কিনেছি, চকলেট কিনেছি। আমাদের এই ছোট প্রচেষ্টা অভিভাবকদের যদি একটু সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজে আসে তাহলে খুশি হবো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন দীন মোহাম্মদ দীলু

» রূপগঞ্জে দোয়া ও আলোচনার মধ্য দিয়ে মেসার্স মক্কা ট্রেডার্স এর শুভ উদ্বোধন

» রূপগঞ্জের পূর্বাচলে শীঘ্রই শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে মেসার্স মক্কা ট্রেডার্স

» সংবাদকর্মী নয়নের জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন লিখন রাজ

» ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়েছেন আনছর আলী।

» জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

» প্রিন্সিপাল ইকবাল সিদ্দিকী স্যারের মমতাময়ী মা নুরুন্নাহার সিদ্দিকী’র প্রয়াণে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল

» মন্ত্রী গাজীর ৭৩ তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে আনছর আলী।

» এইচএসসি পরীক্ষা ২০২১ এর ফরম পূরণ স্থগিত

» ঘরবন্দী শিশুদের মানসিক বিকাশের জন্য প্রীতি ফুটবল ম্যাচ

» স্বজনরা গুম হওয়া ব্যক্তিদের ফেরার অপেক্ষায়

» কুমিল্লায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদের মহানগর শাখা কমিটির পরিচিতি ও  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» বরুড়ায় অপকর্মে বাঁধা দেওয়ায় বাড়িতে হামলার অভিযোগ

» বরুড়ায় ইউপি সদস্যের হাতে মহিলাসহ ৩জন আহতের অভিযোগ

» স্বেচ্ছাসেবক লীগ পাবনা জেলা শাখার কমিটির অনুমোদন- ডাবলু সভাপতি ও রুহুল আমিন সাধারণ সম্পাদক

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট

,

উত্তরা ট্রাফিক বিভাগের উদ্যোগে শিশুদের  হেলমেট বিতরণ

মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক সুমনঃ  রাজধানীর উত্তরা ১১ নাম্বার চৌরাস্তা এলাকায়  মোটরসাইকেলে আরোহী শিশুদের মধ্যে হেলমেট বিতরণ করেন উত্তরা ট্রাফিক বিভাগ।
সোমবার সকালে সাড়ে ১১ টার দিকে উত্তরার ১১ নং সেক্টর সংলগ্ন জমজম টাওয়ার মার্কেটের সামনে শিশুদের হেলমেট, ফুল ও চকলেট বিতরণ করা হয়।
ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জুলফিকার আলী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
তিনি বলেন, ‘উত্তরা ট্রাফিক জোনের পক্ষ থেকে একটি ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা এটি। আমরা যারা রাস্তায় কাজ করি বাস্তবতাটা হচ্ছে আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ করতে গিয়ে দেখছি শিশুদের বিষয়টা উপেক্ষিতই রয়ে যাচ্ছে। যারা বাইক ব্যবহার করেন তারা অনেকেই শিশুদের জন্য হেটমেট ব্যবহার করেন না।’
জুলফিকার আলী বলেন, ‘অভিভাবকদের সচেতন করতে আমরা এটি একটি মেসেজ দিচ্ছি। একভাবে আমরা তাদের সেফটি ও দিচ্ছি। টোটাল ১৩টি পয়েন্টে চেক পোস্ট করা হচ্ছে। মোটরযান আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না।’
পরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বাইকারদের ব্যাপারে নিজের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
বাইকারদের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা বলে, মামলা দিবেন, এই দেখেন মামলা খাইছি। লজ্জা দেয়ার জন্য মামলা দেয়া হয়। কেনো সচেতন হবে না।
আবার হেলমেটবিহীন বাইকারদের ধরলেই বলে, এই যে এখানেই যাবো। হেলমেটের কি দরকার?
জুলফিকার আলী বলেন, ‘২শ টাকার মামলা অনেকেই পাত্তা দেয় না। তো সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে প্রথমে। যে দুই লাখ টাকা দিয়ে বাইক কিনতে পারে তারা হেলমেট কিনতে পারবে না? এটা কেমন কথা।
ট্রাফিক বিভাগের এই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্ঘটনা দেখেছি। তাই এর বাস্তবতাটা আমরা বুঝি। অফিসারদের নিকট থেকে টাকা নিয়ে বাঁচ্চাদের জন্য হেলমেট কিনেছি, ফুল কিনেছি, চকলেট কিনেছি। আমাদের এই ছোট প্রচেষ্টা অভিভাবকদের যদি একটু সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজে আসে তাহলে খুশি হবো।
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট