বিকাল ৪:২৯ | বৃহস্পতিবার | ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সালমান আত্মহত্যাই করেছিল : ভক্তদের উদ্দেশে সামিরা

সালমান শাহের মৃত্যুর ব্যাপারে তার স্ত্রী সামিরা নিরাবতা ভেঙ্গে অবশেষে মুখ খুললেন। তিনি বলেন, ‘ইমনকে (সালমান শাহকে) হত্যা করা হয়নি, সে আত্মহত্যা করেছে।

সামিরা বলেন, সত্য কথা একটাই। সত্য কখনো দুইটা হয়না। মিথ্যা কথা বলতে গেলে প্যাচিয়ে বলতে হয়। একেকবার একেক জনের নাম বলতে হয়। আমি যা বলেছি সেটাই প্রমাণ হবে। ইন্টারপোল, এফিবিআই আসলেও আমার কোনো সমস্যা নেই। আমিও চাই তারা আসুক।

সামিরা আরো বলেন, ‘আমার শাশুরি (সালমান শাহের মা, নীলা চৌধুরী) বারবার বলেন যে- তিনি ইন্টারপোল, এফবিআই এর তদন্ত চান। আমার কোনো আপত্তি নেই। আমি ওয়েলকাম জানাই। আমার জন্য আরো সুবিধা হবে প্রমাণ করতে যে, এটি আসলেই আত্মহত্যা, কোনোভাবেই হত্যা না। আল্লাহ আছেন উপরে। যত তদন্ত করা হোক না কেন আমার কোনো সমস্যা নেই।’

তিনি বলেন, ‘এই মামলার সঠিক তদন্ত আমিও চেয়ে এসেছি। স্বামী খুনের অপবাদ আমি বয়ে বেড়াতে চাই না। এই তো সেই স্বামী যে আমার একটু সুখের জন্য কতো পাগলামি করেছে। আমিও তাকে প্রাণের মতো ভালোবেসেছি। সেইসময় যারা সালমানের কাছের মানুষ ছিলেন তারা সবাই জানেন এসব। আমাকে সালমানের মা ব্যক্তি আক্রোশ থেকে খুনের আসামি বলছেন।’

সালমান শাহের ভক্তদের উদ্দেশ্যে সামিরা বলেন, ‘আমার কথাগুলো সালমান শাহের ভক্তদের মানতে কষ্ট হবে। কিন্তু এটাই সত্যি। আমারও কষ্ট হয়। যার হাত ধরে বাবা, মা পরিবার ছেড়ে চলে এসেছিলাম তাকে হারিয়েছি ভাবতে। আজও ইমনের বিকল্প কেউ নেই আমার মনে।

তিনি বলেন, ইমনের মায়ের ভুল কথায় বিভ্রান্ত হয়ে, আবেগতাড়িত হয়ে তার ভক্তরা আমাকে নিয়ে বাজে কথা বলেন, বাজে ধারণা করেন। কিন্তু কারো উপর আমার কোনো রাগ নেই, কষ্ট নেই। প্রথম থেকেই তারা সালমান শাহকে ভালোবাসেন।

কাঁদতে কাঁদতে সামিরা বলেন, ‘সালমান শাহের ভক্তরা এতদিন এক তরফা শুনে এসেছে। তাই ওরা আমাকে দোষ দেয়। এতে ওদের কোনো দোষ নেই। এখন ওদের বোঝা উচিত। কাগজপত্র, বিভিন্ন প্রমাণ, ডিবি (ডিটেকটিভ ব্রাঞ্চ) রিপোর্ট, সিআইডি, জুডিশিয়াল রিপোর্ট সবকিছু মিলিয়ে দেখুক। সর্বশেষ পিবিআই দেখছে এখন। রিপোর্ট একই হবে ইনশাল্লাহ।’

সামিরা বলেন, ‘আমি কিছুই করিনি। আমি কিছু করে থাকলে বাসায় বসে এই দোষ আমার কাঁধে নিতাম না। এখন এত বোকা কোনো বাংলাদেশের মেয়ে নেই। আর আমাদের দেশে শাশুরি-বউয়ের মধ্যে টুকটাক ঝামেলা থাকেই। কিন্তু আমার শাশুরি উদ্দেশ্যমূলকভাবে ইমনের মৃত্যুকে ‘ইনক্যাশ’ করতে চাইছেন। বারবার তিনি কোনো প্রমাণ ছাড়াই ইমনের খুনি হিসেবে বলছেন- সামিরা-সামিরা-সামিরা। কেন? আমার ইমন (সালমান শাহ) যতদিন বেঁচে ছিল আমার শাশুরি কি সে সময় বোবা ছিলেন? কেন ইমন নিজে বলেনি? আমাকে নিয়ে কারো কাছে কোনো অভিযোগ করেনি? কারণ সত্যিটা হলো আমার কোনো দোষ ছিলো না।

সামিরা আরো বলেন, ইমন ওর মাকে পছন্দ করতো না। এটা ইমনের পরিবার, খালা-মামা ও তাদের বাচ্চারা জানতো। ফিল্মের লোকেরাও জানতো। ওর মাকে নিয়ে সবসময়ই ও মানসিক প্রেসারে ভুগতো। অনেক কষ্ট নিয়ে সে আলাদা হয়েছিলো মায়ের কাছ থেকে।

তিনি বলেন, ওর মা কারাগারে ছিলো কিছুদিন। ইমন দেখতে যেতো না। আমিই জোর করে পাঠিয়েছি। এসব কথা নীলা চৌধুরী কী করে ভুলে যান। আমি সবসময় চেষ্টা করেছি তার পাশে থাকতে। কিন্তু তিনি দজ্জাল শাশুরিই হতে চেয়েছেন। যার কাছে নিজের ছেলে ভালোবাসা বঞ্চিত, তার কাছে ছেলের বউয়ের ভালোবাসা আশা করা যায় না। এসব কথা বলতে গেলে আমি অনেক আবেগ প্রবণ হয়ে যাই। আমার উপর দিয়ে অনেক ঝড় যাচ্ছে। আমিও চাই আসল সত্যটা বের হোক। তাহলে আমি শান্তি পাব।

সবশেষে সামিরা বলেন, ‘যেটা সত্য সেটা প্রমাণ হবে ইনশাল্লাহ। যতদিন বেঁচে থাকব এটাই বলে যাব। ভক্তরা যেন ইমনকে দোয়া করে। ইমনের আসল নাম চৌধুরী মোহাম্মদ শাহারিয়ার, সালমান শাহ না। আপনারা পারলে চৌধুরী মোহাম্মদ শাহারিয়ার নাম নিয়ে তার জন্য দোয়া করবেন। আপনারা আমাকে পছন্দ-অপছন্দ করলে কিছুই যায় আসে না। আপনারা ওর জন্য দোয়া করবেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» আলীমের পিতার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন আ’লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আবুল ফজল রাজু।

» কুমিল্লার ঘটনায় ইকবালকে যারা পাগল বলছে তারাই সাঈদীকে চাঁদে দেখেছে আবুল ফজন রাজু।

» শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা আবুল ফজল রাজু

» বর্তমান সরকার সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মানুষের কল্যাণে পর্যাপ্ত কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে- পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী

» শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন- মেম্বার মোরশেদ আলম।

» শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে আনছর আলীর উপহার সামগ্রী বিতরণ।

» পুনরায় পাপ্পা গাজী ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন শরাফত আলী।

» পুনরায় পাপ্পা গাজী ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন দীন মোহাম্মদ দীলু।

» পাপ্পা গাজী ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক হওয়ায় আবুল ফজল রাজুর অভিনন্দন

» হাসিনা গাজীর জন্মদিনে দীন মোহাম্মদ দীলুর শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

» বিনা স্বার্থে যে সবার সাথে তাল মিলিয়ে চলে সে ব্যক্তিত্বহীন – লিখন রাজ

» রূপগঞ্জে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে ও দুই পা ভেঙ্গে ১০ লাখ টাকা লুট

» পাট ও বস্ত্রমন্ত্রীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উযযাপন আনছর আলীর।

» রাজধানীর খিলক্ষেতে ‘মোহাম্মদী ডেইরী এন্ড সুইটস্’ শো-রুমের তৃতীয় শাখা শুভ উদ্বোধন

» প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন দীন মোহাম্মদ দীলু

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট

,

সালমান আত্মহত্যাই করেছিল : ভক্তদের উদ্দেশে সামিরা

সালমান শাহের মৃত্যুর ব্যাপারে তার স্ত্রী সামিরা নিরাবতা ভেঙ্গে অবশেষে মুখ খুললেন। তিনি বলেন, ‘ইমনকে (সালমান শাহকে) হত্যা করা হয়নি, সে আত্মহত্যা করেছে।

সামিরা বলেন, সত্য কথা একটাই। সত্য কখনো দুইটা হয়না। মিথ্যা কথা বলতে গেলে প্যাচিয়ে বলতে হয়। একেকবার একেক জনের নাম বলতে হয়। আমি যা বলেছি সেটাই প্রমাণ হবে। ইন্টারপোল, এফিবিআই আসলেও আমার কোনো সমস্যা নেই। আমিও চাই তারা আসুক।

সামিরা আরো বলেন, ‘আমার শাশুরি (সালমান শাহের মা, নীলা চৌধুরী) বারবার বলেন যে- তিনি ইন্টারপোল, এফবিআই এর তদন্ত চান। আমার কোনো আপত্তি নেই। আমি ওয়েলকাম জানাই। আমার জন্য আরো সুবিধা হবে প্রমাণ করতে যে, এটি আসলেই আত্মহত্যা, কোনোভাবেই হত্যা না। আল্লাহ আছেন উপরে। যত তদন্ত করা হোক না কেন আমার কোনো সমস্যা নেই।’

তিনি বলেন, ‘এই মামলার সঠিক তদন্ত আমিও চেয়ে এসেছি। স্বামী খুনের অপবাদ আমি বয়ে বেড়াতে চাই না। এই তো সেই স্বামী যে আমার একটু সুখের জন্য কতো পাগলামি করেছে। আমিও তাকে প্রাণের মতো ভালোবেসেছি। সেইসময় যারা সালমানের কাছের মানুষ ছিলেন তারা সবাই জানেন এসব। আমাকে সালমানের মা ব্যক্তি আক্রোশ থেকে খুনের আসামি বলছেন।’

সালমান শাহের ভক্তদের উদ্দেশ্যে সামিরা বলেন, ‘আমার কথাগুলো সালমান শাহের ভক্তদের মানতে কষ্ট হবে। কিন্তু এটাই সত্যি। আমারও কষ্ট হয়। যার হাত ধরে বাবা, মা পরিবার ছেড়ে চলে এসেছিলাম তাকে হারিয়েছি ভাবতে। আজও ইমনের বিকল্প কেউ নেই আমার মনে।

তিনি বলেন, ইমনের মায়ের ভুল কথায় বিভ্রান্ত হয়ে, আবেগতাড়িত হয়ে তার ভক্তরা আমাকে নিয়ে বাজে কথা বলেন, বাজে ধারণা করেন। কিন্তু কারো উপর আমার কোনো রাগ নেই, কষ্ট নেই। প্রথম থেকেই তারা সালমান শাহকে ভালোবাসেন।

কাঁদতে কাঁদতে সামিরা বলেন, ‘সালমান শাহের ভক্তরা এতদিন এক তরফা শুনে এসেছে। তাই ওরা আমাকে দোষ দেয়। এতে ওদের কোনো দোষ নেই। এখন ওদের বোঝা উচিত। কাগজপত্র, বিভিন্ন প্রমাণ, ডিবি (ডিটেকটিভ ব্রাঞ্চ) রিপোর্ট, সিআইডি, জুডিশিয়াল রিপোর্ট সবকিছু মিলিয়ে দেখুক। সর্বশেষ পিবিআই দেখছে এখন। রিপোর্ট একই হবে ইনশাল্লাহ।’

সামিরা বলেন, ‘আমি কিছুই করিনি। আমি কিছু করে থাকলে বাসায় বসে এই দোষ আমার কাঁধে নিতাম না। এখন এত বোকা কোনো বাংলাদেশের মেয়ে নেই। আর আমাদের দেশে শাশুরি-বউয়ের মধ্যে টুকটাক ঝামেলা থাকেই। কিন্তু আমার শাশুরি উদ্দেশ্যমূলকভাবে ইমনের মৃত্যুকে ‘ইনক্যাশ’ করতে চাইছেন। বারবার তিনি কোনো প্রমাণ ছাড়াই ইমনের খুনি হিসেবে বলছেন- সামিরা-সামিরা-সামিরা। কেন? আমার ইমন (সালমান শাহ) যতদিন বেঁচে ছিল আমার শাশুরি কি সে সময় বোবা ছিলেন? কেন ইমন নিজে বলেনি? আমাকে নিয়ে কারো কাছে কোনো অভিযোগ করেনি? কারণ সত্যিটা হলো আমার কোনো দোষ ছিলো না।

সামিরা আরো বলেন, ইমন ওর মাকে পছন্দ করতো না। এটা ইমনের পরিবার, খালা-মামা ও তাদের বাচ্চারা জানতো। ফিল্মের লোকেরাও জানতো। ওর মাকে নিয়ে সবসময়ই ও মানসিক প্রেসারে ভুগতো। অনেক কষ্ট নিয়ে সে আলাদা হয়েছিলো মায়ের কাছ থেকে।

তিনি বলেন, ওর মা কারাগারে ছিলো কিছুদিন। ইমন দেখতে যেতো না। আমিই জোর করে পাঠিয়েছি। এসব কথা নীলা চৌধুরী কী করে ভুলে যান। আমি সবসময় চেষ্টা করেছি তার পাশে থাকতে। কিন্তু তিনি দজ্জাল শাশুরিই হতে চেয়েছেন। যার কাছে নিজের ছেলে ভালোবাসা বঞ্চিত, তার কাছে ছেলের বউয়ের ভালোবাসা আশা করা যায় না। এসব কথা বলতে গেলে আমি অনেক আবেগ প্রবণ হয়ে যাই। আমার উপর দিয়ে অনেক ঝড় যাচ্ছে। আমিও চাই আসল সত্যটা বের হোক। তাহলে আমি শান্তি পাব।

সবশেষে সামিরা বলেন, ‘যেটা সত্য সেটা প্রমাণ হবে ইনশাল্লাহ। যতদিন বেঁচে থাকব এটাই বলে যাব। ভক্তরা যেন ইমনকে দোয়া করে। ইমনের আসল নাম চৌধুরী মোহাম্মদ শাহারিয়ার, সালমান শাহ না। আপনারা পারলে চৌধুরী মোহাম্মদ শাহারিয়ার নাম নিয়ে তার জন্য দোয়া করবেন। আপনারা আমাকে পছন্দ-অপছন্দ করলে কিছুই যায় আসে না। আপনারা ওর জন্য দোয়া করবেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট